খাল নাকি সবুজ মাঠ!

0
68

  সেলিম মিয়া, সোনাইমুড়ি (নোয়াখালী) ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৯:৫৯:১০ | অনলাইন সংস্করণ

খাল

নোয়াখালীর সোনাইমুড়িতে খাল দেখে বোঝার উপায় নেই যে এটি খাল নাকি সবুজের মাঠ। খালটি খননে সরকারি বরাদ্দ দেয়ার পরও কিছু খনন করে হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায়।

এরপর থেকে খালে ময়লা আবর্জনার স্তূপ ও সবুজ ঘাসের মাঠে পরিণত হয়েছে। এ খালটি মানুষের কোনো কাজে আসে না। সরকারের সারা দেশে খাল খননের নির্দেশ থাকলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জলাবদ্ধতার ব্যাপারে কোনো মাথা ব্যথা নেই। অন্যদিকে মুষ্টিমেয় কিছু স্বার্থান্বেষী মহল ফায়দা হাসিল করে খাল দখল করে গড়ে তুলেছে শত শত অবৈধ স্থাপনা।

সরেজমিন জানা যায়, গত ২০১৯-২০ অর্থবছরে খাল খননে বরাদ্দ দেয়া হয় প্রায় ৩০ লাখ টাকা। ২০১৯ সালে খাল খনন কাজ চালু করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টিনা পাল। খনন কাজ চালুর পরই হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায়। কেন বা কী কারণে বন্ধ হয়ে যায় খনন কাজ, তা কেউ জানে না। এটি বেগমগঞ্জ-চাটখিলের মধ্যে পানি চলাচলের একমাত্র খাল। এটি ডাকাতিয়া নদীর মোহনায় গিয়ে মিলিত হয়েছে।

বাজারের প্রবীণ ব্যবসায়ী হাজী ইমাম হোসেনসহ একাধিক ব্যবসায়ী জানান, ২০ বছর আগেও এই খালে বড় বড় মালবাহী নৌকা চলাচল করত। বর্তমানে নতুন প্রজন্মের কাছে এটা রূপকথার গল্পের মতো। সোনাইমুড়ি বাজারের ময়লা-আবর্জনা ও খাল দখল করে দোকানপাট করার কারণে খালে পানি চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হলে নেপিয়ার ঘাসের বাম্পার ফলনে এটাকে অনেকেই গো-চারণ ভূমি হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

বর্ষার ভরা মৌসুমেও খালে পানি নেই। খালে ফেলা আবর্জনার স্তূপে মানুষ হাঁটাচলা করতে পারে। পৌরসভার বগাদিয়া থেকে কৌশল্যারবাগ পর্যন্ত প্রায় ২ কিমি দৈর্ঘ্যের মধ্যে ময়লার ভাগাড়ে উপজেলার পশ্চিমাংশের সঙ্গে পূর্ব ও দক্ষিণাংশের পানি চলাচলের বড় অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

খননের উদ্যোগ না থাকায় উপজেলা সদরসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলে একটু বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এতে জনদুর্ভোগ যেন সাধারণ মানুষের নিয়তি হয়ে দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে খাল দখল করে গড়ে উঠেছে শত শত অবৈধ স্থাপনা। মুষ্টিমেয় কিছু স্বার্থান্বেষী মহল ফায়দা হাসিল করলেও উপজেলার লাখ লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে মানবেতর জীবনযাপনে বাধ্য হয়।

এ বিষয়ে সোনাইমুড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার টিনা পাল জানান, এসব খাল খননের জন্য বরাদ্দ এলেও পর্যাপ্ত পরিমাণ মালামাল না থাকায় কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না। তালিকা পাঠানো হয়েছে, শিগগিরই খাল খননের ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here